একজন ছাত্রনেতা থেকে জননেতা হয়ে উঠার গল্প-এড তাহির রায়হান চৌধুরী পাবেল

প্রকাশিত: ৫:৪৬ অপরাহ্ণ, সেপ্টেম্বর ২৫, ২০২০
সুনামগন্জ সরকারি কলেজের প্রত্যোক্ষ্য ভোটে নির্বাচিত সাবেক ভিপি,দিরাই উপজেলা বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা সাধারণ সম্পাদক ও বার,বার নির্বাচিত সাবেক সফল সভাপতি ও সুনামগঞ্জ জেলা বিএনপির সাবেক সহ-সভাপতি, মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম সংগঠক এবং মুক্তিযুদ্ধকালীন সর্বদলীয় ছাত্র সংগ্রাম পরিষদের আহবায়ক মরহুম জননেতা জনাব #আব্দুস_শহীদ_চৌধুরীর সুযোগ্য উত্তরসুরি #এড_তাহির_রায়হান_চৌধুরী_পাবেল একদিনে তৈরি হননি উনার রক্তে রন্ধ্রে বিএনপি।
উনি উড়ে এসে জুড়ে বসেননি,
উনার জন্মই হয়েছে ঐতিহ্যবাহি একটি সম্ভ্রান্ত রাজনৈতিক পরিবারে, উনার দক্ষতা ও সাংগঠনিক ক্ষমতায় ভীত হয়ে কিছু ষড়যন্ত্রকারিরা আজ দিশেহারা, আর এ কারনেই উনার বিরুদ্ধ ষড়যন্ত্রে লিপ্ত হয়েছে,
তাই উনার পরিবার ও উনার নিজের সম্পর্কে কিছু তথ্য আপনাদের সামনে তুলে ধরার প্রয়াস করলাম।
উনার পিতা মরহুম আব্দুস শহীদ চৌধুরী সেই লোক যিনি দিরাই শাল্লায় বিএনপি প্রতিষ্ঠা কালীন সময়ে সমন্বয়কের দ্বায়িত্ব পালন করেন,বিএনপি প্রতিষ্ঠার প্রাক্ষালে দিরাই’য়ে বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা মরহুম রাষ্ট্রপতি #শহীদ_জিয়া দিরাই আসলে ইনার মঞ্চে সভাপতিত্ব করেন, উনি সেই নেতা যিনি সাবেক তিন তিনবারের সফল প্রধানমন্ত্রী আপোষহীন নেত্রী বিএনপি চেয়ারপার্সন দেশনেত্রী #বেগম_খালেদাজিয়া‘র মন্চে সভাপতিত্ব করেন,
উনি সেই নেতা যিনি ভবিষ্যৎ রাষ্ট্রনায়ক দেশনায়ক #তারেক_রহমান দিরাই আসলে উনার মন্চে ও সভাপতিত্ব করেন।
এখন আসি পাবেল ভাই প্রসঙ্গে উনি ছাত্রজীবন থেকেই অত্যন্ত মেধাবী ও বুদ্ধিদ্বীপ্ত মানবিক গুণাবলী সম্পন্ন ব্যক্তিত্ব্য জীবনে কোনদিন কোন পরিক্ষায় দ্বিতীয় হননি,সেইসাথে উনি ছাত্র-রাজনীতিতে ও গুরুত্বপূর্ণ ভুমিকা রাখেন উনি সিলেট এম,সি কলেজ শাখার সাংগঠনিক সম্পাদক ছিলেন, ছিলেন মহানগর ছাত্রদলের অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ সদস্য,এবং সিলেটস্থ সুনামগন্জ জেলা জাতীয়তাবাদী আইন-ছাত্র ফোরামের আহবায়ক,
পরে উনি দিরাই উপজেলা ছাত্রদলের সভাপতি নির্বাচিত হন এবং সুনামগঞ্জ জেলা ছাত্রদলের সহ-সভাপতি ও হন, এরপর কৃতিত্বের সহিত আইন পাশ করে অত্যন্ত সুনাম ও দক্ষতার সহিত আইনজীবী হিসেবে সিলেট জজকোর্টে উকালতি পেশায় নিযুক্ত হন,তারপর উনি উন্নতর ডিগ্রি লাভের জন্য যুক্তরাজ্য গমন করেন এবং এল,এল,এম ডিগ্রী অর্জন করতে সেখানে অধ্যয়ন শুরু করেন পাশাপাশি রাজনীতিতে ও মনোনিবেশ করেন যাঁর ফলশ্রুতিতে উনি যুক্তরাজ্য বিএনপির যুগ্ম সম্পাদক নির্বাচিত হন এবং একজন দক্ষ সংগঠক হিসেবে দেশনায়ক তারেক রহমানের সুনজরে আসেন এরই ধারাবাহিকতায় দেশনায়ক তারেক রহমান এর সাথে অত্যন্ত আন্তরিক ও মধুর সম্পর্ক গড়ে উঠে।
এমনকি উনার ছোট বোনের বিয়েতে আমাদের প্রিয় নেতা দেশনায়ক #তারেক_রহমান স্বশরীরে উপস্থিত হয়ে উনাকে সম্মানিত করেন এবং কৃতজ্ঞতাপাশে আবদ্ধ করেন,যা আমাদের দিরাই-শাল্লা বাসি বিএনপি পরিবারের জন্য অতন্ত্য গৌরবের।
শুধু তাই নয় গত জাতীয় সংসদ নির্বাচনে দেশনায়ক তারেক রহমানের নির্দেশ ক্রমে দল উনাকে সংসদীয় আসন সুনামগঞ্জ -২ (দিরাই-শাল্লা)থেকে ধানের শীষের প্রার্থী হিসাবে প্রাথমিক মনোনয়ন দেয়,
উনি ধীরে ধীরে ছাত্রনেতা থেকে হয়ে উঠেন জননেতা বর্তমানে উনি যুক্তরাজ্য বিএনপির সম্মানিত সদস্য এবং সহ-সভাপতির মর্যাদায় সুনামগঞ্জ জেলা বিএনপির উপদেষ্টা পদে আসীন।
ব্যক্তিগত জীবনে উনি বর্তমানে একজন সফল ব্যবসায়ী, #জলসা_গ্রুপের #চেয়ারম্যান হিসেবে দ্বায়িত্ব পালন করছেন।
সামাজিক দ্বায়বদ্ধতা থেকে উনি উনার মরহুম পিতার নামে গঠন করেছেন #শহীদ_চৌধুরী_ফাউন্ডেশন যা সাধারণ মানুষের কল্যানে কাজ করছে।
অথছ কতিপয় উচ্ছিষ্ট দালাল যাঁরা দলের নির্দেশ অমান্য করে সুরঞ্জিত সেন গুপ্ত মারা যাওয়ার পরে উপনির্বাচনে আওয়ামিলীগ এর বিদ্রোহী প্রার্থী #রেজু_মিয়া‘র সিংহ মার্কার নির্বাচনে ভাড়াটিয়া হিসেবে কামলা খেটেছে এমনকি গত উপজেলা নির্বাচনে ও দল বিক্রি করে নৌকায় ভোট দিয়েছে তাঁরা আজ পাবেল ভাইয়ের জনপ্রিয়তায় ইর্শ্বান্বিত হয়ে দিশেহারা!!
বর্তমানে দিরাই শাল্লার প্রতিটি জনপদে #পাবেল ভাই একটি ভরসার নাম, বহু স্কুল, কলেজ, মসজিদ-মাদ্রাসা,সামাজিক সংগঠন ও এতিম খানায় রয়েছে উনার বিশেষ অবদান যা বলা বাহুল্য।
এই করেনা মহামারীতেই শুধু উনি নিজের পকেট থেকে ব্যয় করেছেন প্রায় পন্চাশ লক্ষ টাকার ও উপরে আর দলীয় নেতাকর্মীদের মামলা মোকদ্দমা, রোগব্যাধিতে উনার সহযোগিতা-তো অবিরত আছেই, আর তাইতো এখন দিরাই শাল্লার গণমানুষের প্রিয় নেতা #এড_তাহির_রায়হান_চৌধুরী_পাবেল ভাই হয়ে উঠেছেন জাতীয়তাবাদী পরিবারের এক মহিরুহ এক অপরিহার্য নাম,
পরিশেষে দিরাই শাল্লা তথা দেশবাসীর কাছে ভাই ও ভাইয়ের পরিবারের সবার সুস্বাস্থ্যে ও নেক হায়াতের জন্য দোয়া প্রার্থনা করছি,
মহান আল্লাহ সকলের সহায় হোন।